Tuesday, September 28, 2021

Surah Mulk

Surah Mulk (The Dominion )

 

Surah Mulk

Assalamu Walikum brothers and sisters, If you want to learn the inner meaning, benefit and detail background of Surah Mulk then this place is for you. Here we discus Surah Al- Mulk in detail. This blog is created for those people who want to learn Surah Mulk in english and other different languages. After reading surah Mulk read online we will know many unknown things aboul Surah Mulk Insallah. Here we also provide Surah Mulk pdf for you.


Classification-                                Meccan Surah

Other Name-                                  KingShip

Position-                                         Juz 29 Tabaraka- Iladhi

No. of Section-                               2

No. of Verse-                                  30

No. of Words-                                337

No. of Letters-                               1316

 

Meaning Of the Word “Mulk”

In roman Hindi the word ‘Mulk’ means a region or land or Country. In medieval India there was a king named Nizam-Ul-Mulk that means Loard or King of the land. So we can refer the word ‘Mulk’ as Country.

 

Benefits of Surah Mulk

It was portrayed that Abd Allah ibn Mas'ud said: Whoever peruses Tabarakalladhi Biyadihil Mulk [i.e. Surah al-Mulk] consistently, Allah will shield him from the torture of the grave. In the Book of Allah it is a surah which, whoever recounts it consistently has done quite well.

The other benefits of Surah Mulk when you recite Surah Mulk before sleeping, an angel comes to protect you, because when a person sleeps, he is unable to protect himself.

 

When to Recite Surah Mulk

Like all the Surahs one  can recite Surah Mulk in any time, but in some special time Recitation is more benifitial than other time.

According to genuine hadith. surah mulk can be recited after the completion of Maghrib prayer(4th prayer in a day) and can be also recited after Isha prayer.

 

Background of Surah Mulk

Surah Mulk is Meccan which means it was revealed before Hijrah; Meccan surahs are shorter in comparison to Madani surahs. During this time many of the people were still arrogant and followed the ways of ancestors, so Meccan surahs are more powerful in order to build tawheed and aqeedah, which can be seen all throughout the surah.

Themes


1) Proof for Allah’s Oneness and Might, and 2) His prize and mercy upon slaves. Surah Mulk also 3) highlights the origination of creation, and 4) the condition of the believers and disbelievers on the Day of Resurrection.

Remember death is unavoidable, so read, reflect over, and act upon the verses to safeguard yourself. It doesn’t take more than 5 minutes, so be sure to add this to your nightly routine!


    <<CLICK HERE TO DOWNLOAD SURAH MULK PDF>>


Beautiful recitation of Surah Mulk By Salim Bahanan


Surah Mulk in Arabic and English Pronunciation

بِسْمِ اللَّهِ الرَّحْمَٰنِ الرَّحِيمِ

Bismillaahir Rahmaanir Raheem
1. تَبَارَكَ الَّذِي بِيَدِهِ الْمُلْكُ وَهُوَ عَلَىٰ كُلِّ شَيْءٍ قَدِيرٌ

Tabaarakal lazee biyadihil mulku wa huwa 'alaa kulli shai-in qadeer


2. الَّذِي خَلَقَ الْمَوْتَ وَالْحَيَاةَ لِيَبْلُوَكُمْ أَيُّكُمْ أَحْسَنُ عَمَلًا ۚ وَهُوَ الْعَزِيزُ الْغَفُورُ

Allazee khalaqal mawta walhayaata liyabluwakum ayyukum ahsanu 'amalaa; wa huwal 'azeezul ghafoor


3. الَّذِي خَلَقَ سَبْعَ سَمَاوَاتٍ طِبَاقًا ۖ مَا تَرَىٰ فِي خَلْقِ الرَّحْمَٰنِ مِنْ تَفَاوُتٍ ۖ فَارْجِعِ الْبَصَرَ هَلْ تَرَىٰ مِنْ فُطُورٍ

Allazee khalaqa sab'a samaawaatin tibaaqam maa taraa fee khalqir rahmaani min tafaawut farji'il basara hal taraa min futoor


4. ثُمَّ ارْجِعِ الْبَصَرَ كَرَّتَيْنِ يَنْقَلِبْ إِلَيْكَ الْبَصَرُ خَاسِئًا وَهُوَ حَسِيرٌ

Summar ji'il basara karrataini yanqalib ilaikal basaru khaasi'anw wa huwa haseer


5. وَلَقَدْ زَيَّنَّا السَّمَاءَ الدُّنْيَا بِمَصَابِيحَ وَجَعَلْنَاهَا رُجُومًا لِلشَّيَاطِينِ ۖ وَأَعْتَدْنَا لَهُمْ عَذَابَ السَّعِيرِ

Wa laqad zaiyannas samaaa'ad dunyaa bimasaa beeha wa ja'alnaahaa rujoomal lish shayaateeni wa a'tadnaa lahum 'azaabas sa'eer


6. وَلِلَّذِينَ كَفَرُوا بِرَبِّهِمْ عَذَابُ جَهَنَّمَ ۖ وَبِئْسَ الْمَصِيرُ

Wa lillazeena kafaroo bi rabbihim 'azaabu jahannama wa bi'sal maseer


7. إِذَا أُلْقُوا فِيهَا سَمِعُوا لَهَا شَهِيقًا وَهِيَ تَفُورُ

Izaaa ulqoo feehaa sami'oo lahaa shaheeqanw wa hiya tafoor


8. تَكَادُ تَمَيَّزُ مِنَ الْغَيْظِ ۖ كُلَّمَا أُلْقِيَ فِيهَا فَوْجٌ سَأَلَهُمْ خَزَنَتُهَا أَلَمْ يَأْتِكُمْ نَذِيرٌ

Takaadu tamayyazu minal ghaizz kullamaaa ulqiya feehaa fawjun sa alahum khazanatuhaaa alam ya'tikum nazeer


9. قَالُوا بَلَىٰ قَدْ جَاءَنَا نَذِيرٌ فَكَذَّبْنَا وَقُلْنَا مَا نَزَّلَ اللَّهُ مِنْ شَيْءٍ إِنْ أَنْتُمْ إِلَّا فِي ضَلَالٍ كَبِيرٍ

Qaaloo balaa qad jaaa'anaa nazeerun fakazzabnaa wa qulnaa maa nazzalal laahu min shai in in antum illaa fee dalaalin kabeer


10. وَقَالُوا لَوْ كُنَّا نَسْمَعُ أَوْ نَعْقِلُ مَا كُنَّا فِي أَصْحَابِ السَّعِيرِ

Wa qaaloo law kunnaa nasma'u awna'qilu maa kunnaa feee as haabis sa'eer


11. فَاعْتَرَفُوا بِذَنْبِهِمْ فَسُحْقًا لِأَصْحَابِ السَّعِيرِ

Fa'tarafoo bizambihim fasuhqal li as haabis sa'eer


12. إِنَّ الَّذِينَ يَخْشَوْنَ رَبَّهُمْ بِالْغَيْبِ لَهُمْ مَغْفِرَةٌ وَأَجْرٌ كَبِيرٌ

Innal lazeena yakhshawna rabbahum bilghaibi lahum maghfiratunw wa ajrun kabeer


13. وَأَسِرُّوا قَوْلَكُمْ أَوِ اجْهَرُوا بِهِ ۖ إِنَّهُ عَلِيمٌ بِذَاتِ الصُّدُورِ

Wa asirroo qawlakum awijharoo bih; innahoo 'aleemum bizaatis sudoor


14. أَلَا يَعْلَمُ مَنْ خَلَقَ وَهُوَ اللَّطِيفُ الْخَبِيرُ

Alaa ya'lamu man khalaqa wa huwal lateeful khabeer


15. هُوَ الَّذِي جَعَلَ لَكُمُ الْأَرْضَ ذَلُولًا فَامْشُوا فِي مَنَاكِبِهَا وَكُلُوا مِنْ رِزْقِهِ ۖ وَإِلَيْهِ النُّشُورُ

Huwal lazee ja'ala lakumul arda zaloolan famshoo fee manaakibihaa wa kuloo mir rizqih; wa ilaihin nushoor


16. أَأَمِنْتُمْ مَنْ فِي السَّمَاءِ أَنْ يَخْسِفَ بِكُمُ الْأَرْضَ فَإِذَا هِيَ تَمُورُ

'A-amintum man fissamaaa'i aiyakhsifa bi kumul arda fa izaa hiya tamoor


17. أَمْ أَمِنْتُمْ مَنْ فِي السَّمَاءِ أَنْ يُرْسِلَ عَلَيْكُمْ حَاصِبًا ۖ فَسَتَعْلَمُونَ كَيْفَ نَذِيرِ

Am amintum man fissamaaa'i ai yursila 'alaikum haasiban fasata'lamoona kaifa nazeer


18. وَلَقَدْ كَذَّبَ الَّذِينَ مِنْ قَبْلِهِمْ فَكَيْفَ كَانَ نَكِيرِ

Wa laqad kazzabal lazeena min qablihim fakaifa kaana nakeer


19. أَوَلَمْ يَرَوْا إِلَى الطَّيْرِ فَوْقَهُمْ صَافَّاتٍ وَيَقْبِضْنَ ۚ مَا يُمْسِكُهُنَّ إِلَّا الرَّحْمَٰنُ ۚ إِنَّهُ بِكُلِّ شَيْءٍ بَصِيرٌ

Awalam yaraw ilat tairi fawqahum saaaffaatinw wa yaqbidn; maa yumsikuhunna il'lar rahmaan; innahoo bikulli shai in baseer


20. أَمَّنْ هَٰذَا الَّذِي هُوَ جُنْدٌ لَكُمْ يَنْصُرُكُمْ مِنْ دُونِ الرَّحْمَٰنِ ۚ إِنِ الْكَافِرُونَ إِلَّا فِي غُرُورٍ

Amman haazal lazee huwa jundul lakum yansurukum min doonir rahmaan; inilkaafiroona illaa fee ghuroor


21. أَمَّنْ هَٰذَا الَّذِي يَرْزُقُكُمْ إِنْ أَمْسَكَ رِزْقَهُ ۚ بَلْ لَجُّوا فِي عُتُوٍّ وَنُفُورٍ

Amman haazal lazee yarzuqukum in amsaka rizqah; bal lajjoo fee 'utuwwinw wa nufoor


22. أَفَمَنْ يَمْشِي مُكِبًّا عَلَىٰ وَجْهِهِ أَهْدَىٰ أَمَّنْ يَمْشِي سَوِيًّا عَلَىٰ صِرَاطٍ مُسْتَقِيمٍ

Afamai yamshee mukibban 'alaa wajhihee ahdaaa ammany yamshee sawiyyan 'alaa siratim mustaqeem


23. قُلْ هُوَ الَّذِي أَنْشَأَكُمْ وَجَعَلَ لَكُمُ السَّمْعَ وَالْأَبْصَارَ وَالْأَفْئِدَةَ ۖ قَلِيلًا مَا تَشْكُرُونَ

Qul huwal lazee ansha akum wa ja'ala lakumus sam'a wal absaara wal af'idata qaleelam maa tashkuroon


24. قُلْ هُوَ الَّذِي ذَرَأَكُمْ فِي الْأَرْضِ وَإِلَيْهِ تُحْشَرُونَ

Qul huwal lazee zara akum fil ardi wa ilaihi tuhsharoon


25. وَيَقُولُونَ مَتَىٰ هَٰذَا الْوَعْدُ إِنْ كُنْتُمْ صَادِقِينَ

Wa yaqooloona mataa haazal wa'du in kuntum saadiqeen


26. قُلْ إِنَّمَا الْعِلْمُ عِنْدَ اللَّهِ وَإِنَّمَا أَنَا نَذِيرٌ مُبِينٌ

Qul innamal 'ilmu 'indallaahi wa innamaaa ana nazeerum mubeen


27. فَلَمَّا رَأَوْهُ زُلْفَةً سِيئَتْ وُجُوهُ الَّذِينَ كَفَرُوا وَقِيلَ هَٰذَا الَّذِي كُنْتُمْ بِهِ تَدَّعُونَ

Falaammaa ra-awhu zulfatan seee'at wujoohul lazeena kafaroo wa qeela haazal lazee kuntum bihee tadda'oon


28. قُلْ أَرَأَيْتُمْ إِنْ أَهْلَكَنِيَ اللَّهُ وَمَنْ مَعِيَ أَوْ رَحِمَنَا فَمَنْ يُجِيرُ الْكَافِرِينَ مِنْ عَذَابٍ أَلِيمٍ

Qul ara'aytum in ahlaka niyal laahu wa mam ma'iya aw rahimanaa famai-yujeerul kaafireena min 'azaabin aleem


29. قُلْ هُوَ الرَّحْمَٰنُ آمَنَّا بِهِ وَعَلَيْهِ تَوَكَّلْنَا ۖ فَسَتَعْلَمُونَ مَنْ هُوَ فِي ضَلَالٍ مُبِينٍ

Qul huwar rahmaanu aamannaa bihee wa 'alaihi tawakkalnaa fasata'lamoona man huwa fee dalaalim mubeen


30. قُلْ أَرَأَيْتُمْ إِنْ أَصْبَحَ مَاؤُكُمْ غَوْرًا فَمَنْ يَأْتِيكُمْ بِمَاءٍ مَعِينٍ

Qul ara'aytum in asbaha maaa'ukum ghawran famai ya'teekum bimaaa'im ma'een

 

Surah Mulk Meaning In English


In the name of Allah, Most Gracious, Most Merciful.

Section- 1



1.  (How) great is that virtuous being, in whose hand (there is all that is in the heavens and the earth) sovereignty, He alone has power over all things (of the universe);

2.  The one who created birth and death, so that he can verify you by it, who is better among you at work (here). He is omnipotent, He is infinitely forgiving;

3.  He is the One who made the seven (strong) heavens, one after the other (placed) in stages; You will not find any flaw anywhere in this (skillful) creation of the Infinitely Merciful God; Look at it again, do you see any cracks anywhere?

4.  Then turn your gaze (towards the sky), see, turn your gaze again (see, your gaze will fail and come back to you tired).

5.  We have made the nearest heaven to be lighted with lamps, and We have set it up (as a missile) to drive away the devils (from the heavens). I have also prepared the system (properly).

6.  Those who disbelieve in their Creator, for them is the punishment of Hell. Hell is the worst place.

7.  When they are thrown into it now (before it is thrown) they will hear it roaring with rage,

8.  (It would seem) that it is bursting with rage; Whenever a party (new sinner) is thrown there, his guards will ask them, "Did not a Warner come to you (to speak of this place)?"

9.  He will say, "Yes, a Warner (of Allah) has come to us, but we have denied them. We have said to them, 'Nothing has been sent down by Allah. Rather, they themselves are drowning in extreme confusion.

10.  They will say, "If only we had listened to the messengers of the Prophet (peace be upon him) and realized that (today) we would not have been among the inhabitants of the blazing Fire."

11.  Then they themselves will confess their (all) guilt, woe to the inhabitants of Hell!

12.  (On the other hand) those (fortunate) people who fear their Creator even though they do not see it (with their own eyes), surely for them is forgiveness and a great reward (from Allah).

13.  Whether you hide it in your words or reveal it (to Allah, both are equal); Because he is also more aware of what is hidden in the mind.

14.  Does He not make known (all things concerning creation), Who created (all things)? (Indeed) Allah is All-Knowing, All-Aware.

Section- 2

15.  He is the Great Being who has made the earth subservient to them, remembering to walk through their alleys (whenever you want) and to enjoy your sustenance from it, one day all of them will have to return to Him.

16.  Do they think that they are safe? May Allah, the Lord of the heavens, not cover the earth with them. (When such a situation arises) then it will tremble (terribly),

16.  Or do you believe that Allah, the Lord of the heavens, will not send against them a violent wind? (Such a day will come and) they will surely know on that day, how (can be terrible) My warning (to ignore)!

16.  Those before me (my warning) who have proved false, show, how (they were) my behavior!

19.  Don't all these people see birds flying over their heads? (How they) match their fan, (again) at one time (it) also rolled up. (Then) Allah, the Most Merciful, fixed them (in space). (Yes, only God is pure); He sees everything (the sixth largest of His creations).

20. That is to say, who among the you has (such) a huge army, (with which) they will help you against the Most Merciful Allah? (Indeed) those who disbelieve are (always) in confusion,

 21.  If he stops supplying them with the means of subsistence, then (here) who else is there (second) who can provide them with (again) the means of subsistence? Instead, they are in rebellion and bigotry.

22.  The one who walks on the earth (above) with his face covered - is he more guided, or is he (naturally guided on the earth) the more guided?

23.  (O Prophet!) Say (to them) (yes), He is the One who created you, He gave you (ears and eyes) ears and eyes, He gave them (according to the thought) a heart; But they seldom express gratitude.

24.  Say (unto them, O Muhammad): He it is Who hath scattered them in the land, and (all around) one day all of them will be gathered before Him.

25.  They say, "If you are truthful, when will it happen?"

26.  Tell them, "The information is only with God, and I am a clear Warner to him."

27.  When (truly) in this (promise) they see (happen) those who disbelieve (in the life of this world), then the faces of all of them will be disfigured and (then) they will be told; This is the (catastrophe) that you have to challenge!

28.  Say, "Have you considered that if Allah destroys me and my companions, or (He does not destroy) He shows mercy to us (all will be), but those who disbelieve (Allah) (Resurrection) Who will save from this terrible punishment?

29.  Tell them (yes), the only one who can save that day) is Allah, the Merciful, we believe in Him and we rely on Him (yes), soon you will know (among us) who was immersed in the clear error?

30.  (O Prophet!) Ask them (the disbelievers): Have you considered that if their water (in the heart of the earth) ever disappears, then who will bring forth this (clear) stream for them?

 

Surah Mulk in Bangla Translation


পরম করুণাময় অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে

রুকূ

 . (কত) মহান সেই পূণ্যময় সত্ত্বা, যার হাতে (আছে আসমান যমীনের যাবতীয়) সার্বভৌমত্ব, (এসৃষ্টিজগতের) সবকিছুর ওপর তিনি একক ক্ষমতাবান

. যিনি জন্ম মৃত্যু সৃষ্টি করেছেন, যাতে করে এর দ্বারা তিনি তােমাদের যাচাই করে নিতে পারেন, কর্মক্ষেত্রে কে (এখানে) তােমাদের মধ্যে বেশী ভালাে। তিনি সর্বশক্তিমান, তিনি অসীম ক্ষমাশীল

. তিনিই সাত (মজবুত) আসমান বানিয়েছেন, পর্যায়ক্রমে একটার ওপর আরেকটা (স্থাপন করেছেন); অসীম দয়ালু আল্লাহ পাকের (নিপুণ) সৃষ্টির কোথাও কোনাে খুঁত আপনি দেখতে পাবেননা; আবার (তাকিয়ে) দেখুন তাে, কোথাও কি আপনি কোনাে রকম ফাটল দেখতে পান?

. অতঃপর (আপনার) দৃষ্টি ফেরান (আসমানের প্রতি), দেখুন, আরেকবারও আপনার দৃষ্টি ফেরান (দেখবেন, আপনার দৃষ্টি ব্যর্থ ক্লান্ত হয়ে আপনার দিকেই ফিরে আসবে

. নিকটবর্তী আকাশটিকে (আপনি দেখুন, তাকে কিভাবে) প্রদীপমালা দিয়ে আমি সাজিয়ে রেখেছি, (উর্ধ্বলােকের দিকে গমনকারী) শয়তানদের তাড়িয়ে বেড়ানাের জন্যে (প্রদীপগুলাে)-কে আমি (ক্ষেপণাস্ত্র হিসেবে) সংস্থাপন করে রেখেছি, (চূড়ান্ত বিচারের দিন) এদের জন্যে জ্বলন্ত অগ্নিকুণ্ডলীর ভয়াবহ শাস্তির ব্যবস্থাও আমি (যথাযথভাবে) প্রস্তুত করে রেখেছি

. (এতাে সব নিদর্শন সত্ত্বেও) যারা  তাদের স্রষ্টাকে অস্বীকার করেছে, তাদের জন্যে রয়েছে দোযখের (কঠোরতম) শাস্তি; দোযখ কতই না নিকৃষ্টতম স্থান

. এর মধ্যে যখন তাদের ছুঁড়ে ফেলা হবে এখন (নিক্ষিপ্ত হবার আগেই) তারা শুনতে পাবে, তা ক্ষিপ্ত হয়ে বিকট গর্জন করছে

. (মনে হবে) তা যে প্রচণ্ড ক্রোধের কারণে ফেটে দীৰ্ণ বিদীর্ণ হয়ে যাচ্ছে; যখনই একদল (নতুন পাপী)-কে সেখানে নিক্ষেপ করা হবে তখনই তার প্রহরীরা তাদের জিজ্ঞেস করবে, ( জায়গার কথা বলার জন্যে) তােমাদের কাছে কেনাে সতর্ককারী কি আসেনি

. তার বলবে, হ্যা, আমাদের কাছে (আল্লাহর) সতর্ককারী (নবী রাসূল) এসেছিলাে, কিন্তু আমরা তাদের অস্বীকারই করেছি, আমরা তাদের বলেছি, ( দিন সংক্রান্ত) কোনাে কিছুই আল্লাহ পাক অবতীর্ণ করেননি; বরং তােমরা নিজেরাই চরম বিভ্রান্তিতে ডুবে আছাে

১০. তারা বলবে, কত ভালাে হতাে (যদি সেদিন) আমরানবী রাসূলদের কথা শুনতাম এবং (তা) অনুধাবন করতাম, (তাহলে আজ) আমরা জ্বলন্ত আগুনের বাসিন্দাদের মধ্যে গণ্য হতাম না

১১. অতঃপর তারা নিজেরাই নিজেদের (যাবতীয়) অপরাধ স্বীকার করে নেবে, ধিক্কার দোযখের অধিবাসীদের ওপর!

১২. (অপর দিকে) সেসব (সৌভাগ্যবান) মানুষ, যারা নিজেরা (চোখে) না দেখেও তাদের সৃষ্টিকর্তাকে ভয় করেছে, নিঃন্দেহে তাদের জন্যে রয়েছে (আল্লাহ পাকের পক্ষ থেকে) ক্ষমা মহাপুরস্কার

১৩. তােমরা তােমাদের কথাবার্তাগুলাে লুকিয়ে রাখ কিংবা (তা) প্রকাশ করাে (আল্লাহর কাছে এর উভয়টাই সমান); কারণ তিনি মনের ভেতর লুকিয়ে রাখা বিষয় সম্পর্কেও অধিক জ্ঞাত 

১৪. তিনি কি (সৃষ্টি সম্পর্কিত যাবতীয় বিষয়ে) জানাবেননা, যিনি (এর সবকিছু) বানিয়েছেন, (বস্তুত) আল্লাহ পাক অত্যন্ত সূক্ষ্মদর্শী এবং সর্ববিষয়ে সম্যক জ্ঞাত

রুকূ

১৫. তিনিই সেই মহান সত্ত্বা যিনি ভূমিকে তােমাদের অধীন করে বানিয়েছেন, তােমরা (যখন যেভাবে চাও) এর অলিগলির মধ্য দিয়ে চলাচল করাে এবং এর থেকে (উদগত) রিযিক তােমরা উপভােগ করাে মনে রেখাে, একদিন তােমাদের সবাইকে তার কাছেই ফিরে যেতে হবে

১৬. তােমরা কি নিজেদের নিরাপদ ভাবছাে (মহাশক্তিধর) আকাশের প্রভু আল্লাহ পাক কি তােমাদের সহ ভূমণ্ডলকে গেড়ে দেবেন না? (এমনি অবস্থা যখন দেখা দেবে) তখন তা (ভীষণভাবে) কম্পমান হবে

১৭. অথবা তােমরা কি নিশ্চিত, আকাশের (অধিপতি) আল্লাহ পাক তােমাদের ওপর (প্রস্তর নিক্ষেপকারী) এক প্রচণ্ড বায়ু প্রবাহিত করবেন না? (এমন দিন আসবে এবং) তােমরা সেদিন নিশ্চয়ই জানতে পারবে, কেমন (ভয়াবহ হতে পারে) আমার সাবধান বাণী (উপেক্ষা করা)! 

১৮. তাদের আগেও যারা (আমার সাবধান বাণী) মিথ্যা প্রতিপন্ন করেছে, দেখাে, কেমন (ছিলাে তাদের প্রতি) আমার আচরণ

১৯. সব লােকেরা কি তাদের মাথার ওপর (দিয়ে উড়ে যাওয়া) পাখীগুলােকে দেখে না? (কিভাবে এরা) নিজেদের পাখা মেলে রাখে, (আবার) এক সময় (তা) গুটিয়েও নেয়। (তখন) পরম দয়ালু আল্লাহ পাকই এদের (মহাশূন্যে) স্থির করে রাখেন। (হ্যা একমাত্র আল্লাহ পাকই); তিনি (তার সৃষ্টির ছােট বড়) সব কিছুই দেখেন

২০. বলাে তাে, তােমাদের মধ্যে এমন কে আছে যার কাছে (এমন) একটি বিশাল সৈন্যবাহিনী আছে, (যা দিয়ে) তারা অতি দয়ালু আল্লাহর বিরুদ্ধে তােমাদের সাহায্য করবে? (প্রকৃতপক্ষে) অস্বীকারকারী ব্যক্তিরা (সর্বদাই) বিভ্রান্তিতে নিমজ্জিত থাকে,

২১. যদি তিনি তােমাদের জীবিকা (- উপকরণ) সরবরাহ বন্ধ করে দেন, তাহলে (এখানে) এমন (দ্বিতীয়) আর কে আছে যে তােমাদের (পুনরায়) রিকি সরবরাহ করতে পারবে? এরা তাে বরং (মনে হয় আল্লাহ পাকের) বিদ্রোহ এবং গোঁড়ামিতেই (অবিচল হয়ে) রয়েছে

২২. যে ব্যক্তি যমীনের (ওপর দিয়ে) উপুড় হয়ে মুখে ভর দিয়ে চলে- সে ব্যক্তি অধিক পরিমাণে হেদায়াতপ্রাপ্ত, না যে (ব্যক্তি যমীনে স্বাভাবিকভাবে) সঠিক পথ ধরে চলে সে (বেশী হেদায়াতপ্রাপ্ত)?

২৩. (হেনবী!) আপনি (এদের) বলে দিন (হা), তিনিই তােমাদের সৃষ্টি করেছেন, তিনি তােমাদের (শােনার দেখার জন্যে) কান এবং চোখ দিয়েছেন, আরাে দিয়েছেন (চিন্তা করার মতাে) একটি অন্তর; কিন্তু তােমরা খুব কমই (এসব দানের) কৃতজ্ঞতা আদায় করাে

২৪. (এদের আরাে) বলুন, তিনিই ভূখণ্ডে তােমাদের (সর্বত্র) ছড়িয়ে রেখেছেন, আবার (একদিন চারদিক থেকে) তাঁরই সম্মুখে তােমাদের সবাইকে জড়াে করা হবে

২৫. তারা বলে, তােমরা যদি সত্যবাদী হয়ে থাকো, তাহলে (বল) কবে এটা (সংঘটিত) হবে?

২৬. আপনি এদের বলুন, () তথ্য তাে একমাত্র আল্লাহ পাকের কাছেই রয়েছে, আমি তাে একজন সুস্পষ্ট সাবধানকারী

২৭. যখন (সত্যি সত্যিই) (প্রতিশ্রুতি)-তে তারা (সংঘটিত হতে) দেখবে যারা (দুনিয়ার জীবনে) অস্বীকার করেছিলাে, তখন তাদের সবার মুখমণ্ডল বিকৃত হয়ে যাবে এবং (তাদের তখন) বলা হবে; হচ্ছে সেই (মহাধ্বংস), যাকে তােমরা চ্যালেঞ্জ করতে

২৮. আপনি বলুন, তােমরা কি কথা ভেবে দেখেছাে, আল্লাহ পাক যদি আমাকে এবং আমার সঙ্গী সাথীদের ধ্বংস করে দেন, কিংবা (ধ্বংস না করেন) তিনি যদি আমাদের ওপর দয়া প্রদর্শন করেন (সবই হবেতার ইচ্ছাধীন), কিন্তু (আল্লাহ পাককে) যারা অস্বীকার করেছে তাদের (কিয়ামতের দিন) ভয়াবহ শাস্তি থেকে কে বাঁচাবে

২৯. আপনি এদের বলুন (হঁ্যা, সেদিন বাঁচাতে পারেন একমাত্র) দয়াময় আল্লাহ পাকই, তাঁর ওপর আমরা ঈমান এনেছি এবং আমরা তার ওপরই নির্ভর করেছি (হা), শীঘ্রই তােমরা জানতে পারবে (আমাদের মধ্যে) কে সুস্পষ্ট গােমরাহীর মাঝে নিমজ্জিত ছিলাে

৩০. (হেনবী!) আপনি (এদের) জিজ্ঞেস করুন, তােমরা কি ভেবে দেখেছাে, তােমাদের (যমীনের বুকে অবস্থিত) পানি যদি কখনাে উধাও হয়ে যায়, তাহলে কে তােমাদের জন্যে (পানির) স্বচ্ছ প্রবাহধারা পুনরায় বের করে আনবে?

 

1 comment: